লকডাউনেও থেমে নেই রক্ত পিপাসুরা-

লকডাউনেও থেমে নেই রক্ত পিপাসুরা-

সুদেব কান্তি দে বিশেষ প্রতিনিধি লোহাগাড়া,দর্পণ টিভিঃ-

৮ই এপ্রিল সন্ধ্যায় লোহাগাড়া উপজেলাধীন বড়হাতিয়া ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের তৈয়বের পাড়ার মোঃ মোস্তাফিজুর রহমানের ছেলে মোঃআবুল কাশেম, স্হানিয় চিহ্নিত সন্ত্রাসী নোমান প্রকাশ গুটি নোমান, শফিক ও মো হাফিজের নির্মম অত্যাচারের শিকার হয়ে মৃত্যুর প্রহর গুনছে।
স্হানিয় একাধিক সূত্রে জানা যায়,আহত আবুল কাসেম ইফতার সামগ্রী আনতে বাজারে যাওয়ার সময় স্থানীয় শাকিব এর সাথে সাইকেল নিয়ে কথা কাটাকাটি হয়।
কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে শাকিবের বড় ভাই স্থানীয় চিহ্নিত সন্ত্রাসী ইয়াবা ব্যবসায়ী নোমান অতর্কিত এসে ধারালো ছুরি দিয়ে পিঠে ও বুকে এলোপাতাড়ি হামলা চালায়। পূর্ব শত্রুতার জের ধরে নোমান,শাকিবের পিতা জনাব আব্দুল হামিদ প্রকাশ আব্দুল হাফিজও লাঠিসোটা নিয়ে নিরহ কাশেম এর উপর হামলা চালায়।
এতে গুরুতর আহত আবুল কাশেমকে প্রথমে লোহাগড়া সদর হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা প্রদান করে উন্নত চিকিৎসার জন্য চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়।
বর্তমানে নির্যাতনের শিকার স্হানিয় নিরহ মুদি দোকানদার চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মৃত্যুর প্রহর গুনছে।
স্হানিয় কয়েক জন নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন এলাকায় এমন কোন দুই নাম্বারি কাজ নাই তারা বাপ-ছেলের ধারা সংগঠিত হয় না।তারা তিন জনের অত্যাচারে আমার তৈয়বের পাড়াবাসি অতিষ্ঠ, এলাকাবাসী আরো জানায় স্হানিয় কয়েক জন প্রভাবশালীর ছত্রছায়ায় তারা আজ ধরাকে সরা জ্ঞান করছে।
সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায় ন্যাক্কারজনক সন্ত্রাসী হামলার পর উত্তেজিত এলাকাবাসী সন্ত্রাসী আব্দুল হামিদের বাড়ি ঘেরাও করে তার ছোট ছেলে শাকিবকে পাকড়াও করে।
পরে তাকে বড়হাতিয়া ইউনিয়ন এর সুযোগ্য চেয়ারম্যান জনাব মোহাম্মদ জুনায়েদ’র নিকট সোপর্দ করাহয়।

আহত আবুল কাশেমের পিতা মোঃ মোস্তাফিজুর রহমান কান্নাজড়িত কণ্ঠে বলেন, যারা সিয়াম সাধনার পবিত্র মাহে রমজান মাসের মধ্যে আমার ছেলের উপর হামলা করে, জানে মেরে ফেলতে চেয়েছে আমি তাদের উপযুক্ত শাস্তি চাই।
তার সাথে কন্ঠ মিলিয়ে এলাকাবাসীও জোর দাবি জানায়, ঘটনার সুষ্ঠু তদন্তপূর্বক দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি প্রদান করার জন্য প্রশাসনের দৃস্টি আকর্ষণ করছি।

সংবাদ শেয়ার করুন

themesbazartvsite-01713478536