পুড়াপাড়া বাজারে খাস জমির উপর অবৈধ পাকা ঘর নির্মাণ দিন দিন বেড়েই চলছে,কর্তৃপক্ষ নিরব-

পুড়াপাড়া বাজারে খাস জমির উপর অবৈধ পাকা ঘর নির্মাণ দিন দিন বেড়েই চলছে,কর্তৃপক্ষ নিরব-

রবিউল ইসলাম মহেশপুর (ঝিনাইদহ) প্রতিনিধি,দর্পণ টিভিঃ-

ঝিনাইদহের মহেশপুর উপজেলার ১১ নং মান্দার বাড়িয়া ইউনিয়নের পুড়াপাড়া বাজারে সরকারি জমির উপর অবৈধ ভাবে পাকা ছাঁদের ঘর নির্মাণ করছে কিছু ভূমি দস্যুরা।অধিক ক্ষমতাবান এই সব ব্যক্তিদের বাঁধা দেওয়ার জন্য কেউ নাই। তেমনি পুড়াপাড়া বাজারের নিউ ভাই ভাই ফ্যাশান হাউজের মালিক মোঃ আওয়াল হোসেন সরকারি জমির উপর অবৈধ পাকা ছাঁদের ঘর নির্মাণ করছে যেটা সম্পূর্ণভাবে বেআইনি,ডিসিআর থাকলেও তারা পাকা ঘরে ছাঁদ দিতে পারেন না।আবার একই স্থানে প্রশান্ত কুমার ঘর সংস্কার করছে যেটা সরকারি জমির উপর কিন্তু ঘর ছাড়া তিনি দুই হাতের মত রাস্তার বকচরের উপর চলে আসছে যেটা সম্পূর্ণ বেআইনি ।
ঘটনা স্থলে উপস্থিত কয়েকজন দোকানদারের নিকট জানতে চাইলে তারা বলেন, সরকার যখন আমাদের ডিসিআর দিয়েছিলেন তখন সিমানা নির্ধারণ সহ টিনের ছাউনি দিয়ে পাকা ঘর নির্মাণ ও অনুমতি নিয়ে ঘর সংস্কার করতে পারবো কিন্তু ছাঁদ দিতে পারবেনা।এ ব্যাপারে ছাঁদর ঘর নির্মাতা আওয়াল হোসেন ও রাস্তার করচরের উপর দেওয়াল নির্মাণ কারি প্রশান্ত কুমারে নিকট জানতে চাইলে তিনি বলেন মান্দার বাড়িয়া ইউনিয়ন সহকারী ভূমি অফিসারের অনুমতি নিয়ে আমি আমার ঘর সংস্কার করছি।অনুমতির পেপার চাইলে তিনি তা দেখাতে পারেনি।শুধু আওয়াল হোসেন বা প্রশান্ত কুমার নয় ইতি পূর্বে অনেকেই পুড়াপাড়া বাজারে সরকারি জমির উপর অবৈধ ভাবে এক তালা দুই তালা পাকা ঘর নির্মাণ করেছেন, যার প্রতিকার এখনো দেখা যায়নি।
বিষয়টি নিয়ে তাৎক্ষণিকভাবে মান্দার বাড়িয়া ইউনিয়ন ভূমি অফিসের সহকারী ভূমি অফিসার মোঃ সামাউল হোসেনের নিকট জানতে চাইলে তিনি বলেন এই পাকা ঘর নির্মাণের বিষয়ে আমি কিছুই জানিনা।তবে তার প্রতিনিধি হিসাবে মান্দার বাড়িয়া গ্রামের একজন ব্যক্তিকে দেখা গেছে, তিনি ঘটনা স্থলে এসে বলেন আমাকে নায়েব পাঠিয়েছেন এই কাজ বন্ধ করার জন্য, কিন্তু তখনো আওয়াল হোসেন ও প্রশান্ত কুমার ঘরের কাজ বন্ধ করেনি।
উক্ত বিষয় নিয়ে মহেশপুর উপজেলা ভারপ্রাপ্ত নির্বাহী অফিসার সুজন সরকারে নিকট মুঠো ফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করলে, ইউএনও মহাদয়ের সাথে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।ঘটনাটি নিয়ে এলাকায় ব্যাপক আলোচনা সমালোচনার ঝড় বইছে।তাই বিষয়টি দ্রুত নিঃপত্তি না করলে এমন ঘটনা আরো ঘটতে পারে এবং সরকারি জমির উপর এমন অবৈধ পাকা ঘরে পূর্বের মত আরও নির্মাণ হতে পারে। যেটা কোন ভাবেই কাম্য নয়।তাই বিষয়টি দ্রুত সমাধান করার জন্য উদ্বর্তন কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করছেন পুড়াপাড়া এলাকার সুশীল সমাজ।

সংবাদ শেয়ার করুন

themesbazartvsite-01713478536