নওগাঁয় সেনাবাহিনী টহল দেওয়ারপর রাস্তাঘাট ফাঁকা-

নওগাঁয় সেনাবাহিনী টহল দেওয়ারপর রাস্তাঘাট ফাঁকা-

অন্তর আহম্মেদ নওগাঁ জেলা প্রতিনিধিঃ-
নওগাঁয় করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় সেনাবাহিনী কঠোর হওয়ার ঘোষণা দেওয়ার পরও নওগাঁয় বিভিন্ন হাট-বাজার ছোট যানবাহন এবং মোড়ে সকাল থেকে সাধারণ মানুষদের প্রয়োজনে-অপ্রয়োজনে বের হয়ে চালাচল শুরু করেন।
বৃহস্পতিবার সকাল ১০ টার দিকে নওগাঁ শহরের বিভিন্ন সড়কে স্থানীয় প্রশাসনের সহযোগিতায় সেনাবাহিনী-পুলিশ বাহিনী টহল শুরু করেন। এ সময় জনসচেতনা মূলক প্রচার-প্রচারণা শুরুর পাশাপাশি ঘরে থাকার নির্দেশ প্রদান করা শুরু হয়।
পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে এবং করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে সামাজিক দুরত্ব বজায় রাখতে জেলা প্রশাসন, সেনাবাহিনী ও পুলিশ টহলসহ কঠোর অবস্থানে আসে। যানচলাচলে কঠোর অবস্থান নেন। অপ্রয়োজন বের হলে পড়তে হচ্ছে প্রশ্নের সম্মুখে।
এরপর থেকে নওগাঁর বিভিন্ন সড়কে থাকা ছোটছোট যানবাহন বন্ধসহ জনসাধারণের চলাচল কমে যায়। ফলে রাস্তাঘাট ফাঁকা হয়ে যায়। হাতে গোনা দুই একটা অটোরিকশা বা মোটরসাইকেল ছাড়া তেমন যান চলাচল লক্ষ্য করা যায় নি।
গোস্তহাটি এলাকার স্থানীয় আমজাদ হোসেন, কাঁচাবাজার এলাকার খোরশেদ আলম, পুরাতন বাসষ্টান্ড এলাকার সোহেল হোসেনসহ অন্যরা জানান, প্রশাসনসহ সেনাবাহিনী টহল দেওয়া ও প্রচার-প্রচারণার করার সময় ওই এলাকাগুলো ফাঁকা হয়ে যাচ্ছে। প্রশাসনিক কর্মকর্তার চলে যাওয়ার কিছুক্ষণ পর আবারো রাস্তা, মোড়ে মোড়ে আড্ডা দিচ্ছেন। প্রশাসন ব্যাপক প্রচার-প্রচারণা চালালোও জনগণ তেমন মানছেন না। করোনা ভাইরাস থেকে মুক্ত রাখতে প্রশাসনের কর্তকর্তা ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে একটু কঠোর হওয়ার অনুরোধও জানান তারা।
নওগাঁর জেলা প্রশাসক হারুন অর রশীদ জানান, জেলায় করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে জনগণকে আরও সচেতন করতে ২০টি মোবাইল কোর্ট, ৮টি সেনাবাহিনীর টহল টিম ও পুলিশ বাহিনীর টহল ব্যাপক জোরদার করা হয়েছে। সবার সুরক্ষা নিশ্চিত করতে এমন কঠোর পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে। নির্দেশনা অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে। সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকে সামাজিক দুরত্ব বজায় রাখতে মাইকিং করে জনগণকে বাড়িতে নিরাপদে থাকা ও অপরকে নিরাপদে রাখার পরামর্শ দিচ্ছে। এছাড়াও করোনা আতঙ্ককে কাজে লাগিয়ে নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের দাম যেন কেউ বাড়াতে না পারেন সে বিষয়টি তাঁরা নিশ্চিত করছেন।

সংবাদ শেয়ার করুন

themesbazartvsite-01713478536