ফরিদপুর জেলা আওয়ামীলীগের নতুন কান্ডারী: শামীম হক- ইশতিয়াক আরিফ

ফরিদপুর জেলা আওয়ামীলীগের নতুন কান্ডারী: শামীম হক- ইশতিয়াক আরিফ

মহসিন মুন্সী, ব্যুরো চীফ, ফরিদপুর।

ছয় বছর পর নতুন নেতৃত্ব পেয়েছে ফরিদপুর জেলা আওয়ামী লীগ। ত্রিবার্ষিক সম্মেলনে সভাপতি হিসেবে শামীম হক এবং সাধারণ সম্পাদক পদে শাহ্ মো. ইশতিয়াক আরিফকে বেছে নেওয়া হয়। আজ বৃহস্পতিবার বিকেল পাঁচটার দিকে সম্মেলনের প্রধান অতিথি দলের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য কাজী জাফরউল্যাহ নতুন কমিটির নেতাদের নাম ঘোষণা করেন।

শহরের সরকারি রাজেন্দ্র কলেজ মাঠে আয়োজিত ত্রিবার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সুবল চন্দ্র সাহা। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ মাসুদ হোসেন।
এর আগে অনুষ্ঠানস্থলে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়। জেলা ও নয়টি উপজেলার উদ্যোগে দলীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়। পরে ৫০টি পায়রা এবং ১০০ বেলুন উড়িয়ে দেওয়া হয়। অনুষ্ঠানে বক্তৃতা করেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য কাজী জাফরউল্যাহ, ঢাকা বিভাগের আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মির্জা আজম, আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ড. আবদুর রাজ্জাক, ফারুক খান, আবদুর রহমান প্রমুখ।

শহরের সরকারি রাজেন্দ্র কলেজ মাঠে এ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। দুপুর ১২টার দিকে ভার্চ্যুয়ালি এ সম্মেলনের উদ্বোধন করেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। নতুন সভাপতি শামীম হক সদ্য বিলুপ্ত জেলা আওয়ামী লীগ কমিটির সহসভাপতি ছিলেন এবং সাধারণ সম্পাদক ইশতিয়াক আরিফ ছিলেন ওই কমিটির তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক।
সম্মেলনে সভাপতি পদে ১০ ও সাধারণ সম্পাদক পদে ২১ জন প্রার্থী ছিলেন। সম্মেলনের দ্বিতীয় পর্বে সভাপতি পদপ্রত্যাশী ১০ জনকে মঞ্চে ডেকে নেওয়া হয়। তাঁদের ১০ মিনিট সময় দেওয়া হয় নিজেদের মধ্যে আলোচনা করে একক নামের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়ার জন্য। একইভাবে সাধারণ সম্পাদক পদপ্রত্যাশী ২১ জনকে ডেকে নেওয়া হয়। তাঁদেরও নিজেদের মধ্যে আলোচনা করে সমঝোতার মাধ্যমে একক নাম দেওয়ার প্রস্তাব দেওয়া হয়।
কয়েক মিনিট পর সম্মেলনের প্রধান অতিথি কাজী জাফরউল্যাহ মঞ্চে এসে জানান, সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদপ্রত্যাশীরা আলোচনা করে একক সিদ্ধান্তে আসতে পারেননি। এ সময়ে দলীয় প্রধান জননেত্রী শেখ হাসিনা ও দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের সঙ্গে তাঁর কথা হয়েছে। তাঁদের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, জেলা আওয়ামী লীগের আগামী কমিটির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদে যথাক্রমে শামীম হক ও ইশতিয়াক আরিফকে মনোনীত করা হয়েছে।

ফরিদপুর জেলা আওয়ামী লীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ঢাকা থেকে ভার্চ্যুয়ালি যুক্ত হয়ে বক্তৃতা করেন মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, বসন্তের কোকিলদের নেতা বানিয়ে লাভ নেই, ত্যাগী নেতাদের মূল্যায়ন করতে হবে। দলের সংকটে সুবিধাবাদীদের হাজার পাওয়ারের বাল্ব জ্বালিয়ে খুঁজে পাওয়া যাবে না। অতীতে যাঁরা দলের প্রার্থীর বিরোধিতা করেছেন, তাঁদের কমিটিতে স্থান দেওয়া যাবে না। আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে ফরিদপুর জেলা আওয়ামী লীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ঢাকা থেকে ভার্চ্যুয়ালি যুক্ত হয়ে তিনি এসব কথা বলেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ফরিদপুরে বিগত কয়েক বছরে সাংগঠনিক ও রাজনৈতিক অবস্থা সুখকর ছিল না। আওয়ামী লীগের অনেক নেতা-কর্মীকে দুর্ভোগ পোহাতে হয়েছে, রক্তপাত হয়েছে। আওয়ামী লীগ কারা ধ্বংস করেছিল, তাদের চিহ্নিত করতে হবে। এর যেন পুনরাবৃত্তি না ঘটে। চিহ্নিত সন্ত্রাসী, চিহ্নিত চাঁদাবাজ, চিহ্নিত ভূমিদস্যুদের কোনো পদ দেওয়া যাবে না। যারা নৌকার বিরোধিতা করে নির্বাচন করেছে, তাদের কোনো পদে রাখা যাবে না। আওয়ামী লীগ চলবে প্রকৃত আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে, হাইব্রিডদের নেতৃত্বে নয়।
তিনি আরও বলেন, আগামী জুনের শেষ দিকে পদ্মা বহুমুখী সেতুর উদ্বোধন করা হবে। এরপর দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া পয়েন্টে দ্বিতীয় পদ্মা সেতুর নির্মাণকাজ শুরু হবে।

সংবাদ শেয়ার করুন

themesbazartvsite-01713478536