মাংস খাচ্ছেন নাকি দেহ কে ক্যান্সারের তৈরী হওয়ার বাসা বানিয়ে দিচ্ছেন ???

মাংস খাচ্ছেন নাকি দেহ কে ক্যান্সারের তৈরী হওয়ার বাসা বানিয়ে দিচ্ছেন ???

মাংস খাচ্ছেন নাকি দেহ কে ক্যান্সারের তৈরী হওয়ার বাসা বানিয়ে দিচ্ছেন ???

সুস্থ-সবল মানুষের জন্য মাংস খাওয়াতে নেই মানা। তবে যারা খাদ্যাভ্যাস পরিবর্তন বা শারীরিক সমস্যার কারণে মাংস খাওয়া বাদ দিয়েছেন তারা অল্প মাংস খেতেই পারেন। কারণ প্রোটিনের একটি ভালো উৎস মাংস।

মাংসে ভালো পরিমাণে খনিজ লবণ থাকে বিশেষ করে পটাশিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম, সোডিয়াম। এছাড়াও ক্লোরাইড, বাইকার্বোনেট এবং অ্যাসিড ফসফেট থাকে। এসব লবণ থাকে মাংসের চর্বিহীন পেশিতে। তাপে মাংস যখন সঙ্কুচিত হয় তখন এর থেকে পানি মিশ্রিত নির্যাস বের হয় যার বেশিরভাগে সোডিয়াম থাকে।

প্রতি ১০০ গ্রাম গরুর মাংসে ৬৭ শতাংশ পানি, ১৮০ ক্যালরি, ২১ গ্রাম প্রোটিন, ১৪ গ্রাম চর্বি, ৬ মি.গ্রা ক্যালসিয়াম, ২.৩ মি.গ্রা লৌহ, ০.০৮ মি.গ্রা ভিটামিন বি-১, .০২৬ মি.গ্রা বি-২ ও ৮.২ মি.গ্রা নায়াসিন থাকে।

প্রাপ্ত বয়স্ক মানুষের দৈনিক প্রোটিনের চাহিদা ৫৭ গ্রাম। আর অনায়াসে মাংস থেকে ৩০/৪০ গ্রাম প্রোটিন নিয়মিত গ্রহণ করা যেতে পারে। এর জন্য মাঝারি মাপের দুতিন টুকরা গরুর মাংস প্রতিদিনের খাদ্য তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করা যায়। তাই কোরবানির মাংস খেতে খুব একটা দ্বিধাগ্রস্ত না হলেও চলবে।শেফ জাহেদ এর মতে যাদের নানাধরনের শারীরিক সমস্যা রয়েছে তারা চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে খাদ্যতালিকা তৈরি করতে পারেন।

গরুর মাংস খাওয়া প্রসঙ্গে শেফ জাহেদ এর মতে, “ভরপেট খাওয়া কখনই স্বাস্থ্যসম্মত নয়, সুস্থ সবল মানুষদেরও পরিমিত পরিমাণে গরুর মাংস খাওয়া উচিত। যাদের হৃদরোগ আছে, হার্টে ব্লক আছে, রক্ত চাপ বেশি, রক্তে কোলেস্টেরলের পরিমাণ বেশি বা ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে নেই তাদের জন্য গরুর মাংস খাওয়াটা বেশ ক্ষতিকর। সেক্ষেত্রে দুতিন টুকরা বা সর্বোচ্চ চার টুকরা মাংস খেতে পারেন। এর বেশি না খাওয়াই ভালো।”

“গরুর মাংস গুরুপাক খাবার। এর সঙ্গে ভারী খাবার যেমন পোলাও, কোরমা ইত্যাদি খাওয়া হলে তা আরও বেশি গুরুতর হয়। তাই গরুর মাংস খাওয়ার পাশাপাশি আঁশযুক্ত খাবার যেমন- সবজি, সালাদ ও তাজা ফল ইত্যাদি খাওয়া প্রয়োজন।”

“যাদের আলসার বা পিত্তথলিতে পাথরজনিত সমস্যা আছে তাদের গরুর মাংস খেলে খানিকটা অসুবিধা হতে পারে। যেমন- পেটব্যথা, বুকজ্বালা করা ইত্যাদি। সেক্ষেত্রে একটু বেছে খাওয়া উচিত।”

“অনেকের গরুর মাংসে অ্যালার্জি থাকে। ফলে শরীর ও চোখ লাল হয়ে যায়, চোখ চুলকায়, শরীরে র‍্যাশ দেখা দেয়। এই ধরনের সমস্যা থাকলে যতটা সম্ভব গরুর

সংবাদ শেয়ার করুন

themesbazartvsite-01713478536