ফরিদপুর কানাইপুরে ডিবি অভিযানে ভেজাল পণ্যের কারখানার সন্ধান

ফরিদপুর কানাইপুরে ডিবি অভিযানে ভেজাল পণ্যের কারখানার সন্ধান

মহসিন মুন্সী, ব্যুরো চীফ, ফরিদপুর।

ফরিদপুরের শহরতলী, কানাইপুরে ভেজাল খাদ্য পণ্য কারখানায় অভিযান। খাদ্যের গুনগত ও স্বাস্থ্যগত মান যাচাই বাছাই ও রক্ষণাবেক্ষণ কি ঠিকমত পালিত হচ্ছে? ফরিদপুরের বিভিন্ন স্থানে দেশের নামি দামী শিশু খাদ্য ও খাদ্য সামগ্রী উৎপাদকারী প্রতিষ্ঠানের পণ্য নকল করে বাজারজাত করণ হচ্ছে এমন খবর পুলিশের কাছে ছিল। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ফরিদপুর সদর উপজেলার কানাইপুর ইউনিয়নের সোলা কুন্ডু গ্রামে মোঃ আলেফ শেখের বাড়িতে অবস্থানকৃত জেড.এম রাইস এন্ড কনজুমার প্রতিষ্ঠানে অভিযান চালায় ডিবি পুলিশের একটি দল। এ সময় ডিবি ওসি সুনীল কুমার কর্মকার, এস.আই মাহাবুবুলসহ সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন। অভিযানে দেখা যায় একটি ভবনের বিভিন্ন কক্ষে নিম্নমানের যন্ত্রাদি স্থাপন করে শিশু খাদ্য জুস, চকলেট বিস্কুট, সেমাইসহ সাধারণ মানুষের নানা খাদ্য সামগ্রী উৎপাদন করা হচ্ছে। বিল্ডিং এর পশ্চিম অংশে টয়লেটের সামনে শিশুদের জন্য তৈরী করা নিম্নমানের ভেজাল জুস বাজার জাতের জন্য জমা করে রাখা হয়েছে। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে প্রতিষ্ঠানটির কর্তা ব্যক্তিরা পালিয়ে যায়। কর্মরত চার শ্রমিককে আটক করা হয়েছে জিজ্ঞাসা বাদের জন্য। তদন্ত ও পর্যবেক্ষণের জন্য সিলগালা করা হয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। স্থানীয় ইউপি সদস্য মোফিজুর রহমান মুজা ও স্থানীয় ব্যক্তিবর্গের জিম্মায় বাইরে অবস্থানকৃত খাদ্য সামগ্রী রাখা হয়েছে বলে পুলিশ সূত্রে জানা গেছে।
ডিবি পুলিশের ওসি সুনীল কুমার কর্মকার জানান, পুলিশ সুপার আলিমুজ্জামান বিপিএম (সেবা) এর দিকনির্দেশনায় আমরা অভিযান পরিচালনা করি। আরও অভিযান চলবে মানুষের নিরাপত্তায় আমরা কাজ করছি। স্থানীয় ইউপি সদস্য মুজা জানান, ইউনিয়নের বসু নরসিংহদিয়া এলাকার চাউল ব্যবসায়ী জহির মোল্যা গত এক বছর ধরে এই কারখানা পরিচালনা করে আসছে। নকল ও ভেজাল খাদ্য উৎপাদন বিষয়ে অভিযুক্ত প্রতিষ্ঠানের মালিক জহির মোল্যা মুঠো ফোনে জানান, আমি কোন ভেজাল খাদ্য তৈরী করি না। এই ধরনের শিশু খাবার তৈরীর ক্ষেত্রে যে সব অনুমোদন বা প্রযুক্তি ব্যবহার করা দরকার তা আছে কি না তা জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমি তো কেবল শুরু করেছি বিএসটিআই কর্মকর্তাদের সাথে কথা হয়েছে। আপনার উৎপাদিত শিশু খাদ্য টয়লেটের কাছে রাখা কেন এ প্রশ্নে তিনি নিরব হয়ে যান। সরেজমিন ঘটনা স্থলে গিয়ে জানা যায়, এখানে তৈরী জুস, চকলেট, বিস্কুট, সেমাইসহ নানা খাদ্য পণ্য ফরিদপুরের বিভিন্ন স্থানে দীর্ঘদিন ধরে এই প্রতিষ্ঠানটি বাজার জাত করে আসছে।

সংবাদ শেয়ার করুন

themesbazartvsite-01713478536