Darpon TV-গোয়াইনঘাটে রাতের আধারে ভূমি দখলের অপচেষ্টা, অভিযোগ দায়ের

Darpon TV-গোয়াইনঘাটে রাতের আধারে ভূমি দখলের অপচেষ্টা, অভিযোগ দায়ের

স্টাফ রিপোর্টার সিলেট থেকে:
সিলেটের গোয়াইনঘাট উপজেলার ৫ নং পূর্ব আলীরগাঁও ইউনিয়নের পাচসেউতি গ্রামে জৈন্তাপুরের আবুল ফয়সল নামে এক অসহায় কৃষকের পুকুর মাটি ভরাট করে জোরপূর্বক দখল করে নিচ্ছে একটি ভূমিখেকো চত্রু, এমন অভিযোগ সিলেট জেলা পুলিশ সুপার, গোয়াইনঘাট থানা ও উপজেলা সহকারী ভূমি কমিশনার এর নিকট দাখিল করেছেন জৈন্তাপুর উপজেলার আগফৌদ গ্রামের কাজিম উদ্দিনের ছেলে আবুল ফয়ছল।

তাহার মালিকানা জমিটি গোয়াইনঘাট উপজেলার পাচসেউতি মৌজায়। এব্যাপারে আবুল ফয়ছল সিলেটের পুলিশ সুপার বরাবরে একটি লিখিত অভিযোগে বলেন গোয়াইনঘাট উপজেলার পাচসেউতি মৌজা স্থিত ৪০৩ দাগে সাড়ে ১৬. ৪৪ শতক জমি তিনি মৌরসী সূত্রে মালিকানা বিদ্যমান। কিন্তু কুরিহাই গ্রামের
মুবশ্বির আলীর ছেলে বিলাল আহমদ, জাবেদ মিয়ার ছেলে হাসন মেম্বার, ইছহাক মিয়ার ছেলে মখলিছুর রহমান, জৈন্তাপুর উপজেলার আগফৌদ গ্রামের রূপন মিয়ার ছেলে আব্দুস শুকুর সহ অজ্ঞাতনামারা একটি সংঘবদ্ধ ভূমিখেকো চক্র প্রকৃতির লোক । গত ১০ মার্চ বুধবার আনুমানিক রাত দুই ঘঠিকায় দেশীয় অস্ত্র শস্ত্র নিয়ে জোর পূর্বক নিষিদ্ধ এস্কেবেঠর দিয়ে জায়গাটি(পুকুর) ভরাট করার খবর শুনিলে আবুল ফয়সল ঘটনাস্থলে গেলে তাকে (আবুল ফয়ছল) প্রাণনাশের হুমকী দিয়ে জিম্মি করে
জোরপূর্বক পুকুরে মাটি ভরাট করে তারা তাদের দখলের নেওয়ার অপচেষ্টায় মত্ব তাকে, এমনকি তাড়াহুড়া করে কাজ করতে গিয়ে একটি বৈদ্যুতিক খুটি ভেংঙ্গে দেওয়া হয় । এছাড়াও চক্রটি দীর্ঘদিন থেকে এলাকায় অসহায় হতদরিদ্র সাধারণ মানুষের জমি দখলের চেষ্টা চলায়। এরূপ ঘটনার সাক্ষী হিসাবে ২০১৯ সালের ৯ অক্টোবর গোয়াইনঘাট
থানায় একটি সাধারণ ডায়রী করা হয় চক্রটির বিরুদ্ধে । তাছাড়া ২০২০ সালের ৭ জুলাই বিবাদীদের নাম উল্লেখ করে থানায় অভিযোগ দিলে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শণ করে এবং ভূমিখেকো চক্রকে বিভিন্ন রকম হুশিয়ারী দিয়ে থাকে। তাই অনেকটা নিরুপায় হয়ে পৈত্রিক সম্পত্তি ভূমিখেকোদের কবল থেকে উদ্ধারে জন্য ১১ মার্চ
বৃহস্পতিবার সিলেটের পুলিশ সুপার বরাবরে একটি লিখিত অভিযোগ দাখিল করেন তিনি। এছাড়াও অধ্য সোমবার ১৫ মার্চ উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভুমি) এর বরাবরে আরেকটি অভিযোগ দাখিল করেছেন এই ভুক্তভোগী।

অভিযোগে আবুল ফয়ছল আরোও বলেন , সরকারের এসএ, বিএস সহ সকল রেকর্ডে এই জমি আমার পৈত্রিক সম্পত্তি বলে প্রমানিত। যেখানে প্রায় শত বছরের পুরনো একটি পুকুর রয়েছে। কিন্তু বিবাদীগণ গায়ের জোরে এই পুকুরটি মাটি ভরাট করে এবং আমাকে বিভিন্নভাবে হুমকী দিয়ে যাচ্ছে। এ ব্যাপারে সহকারী ভূমি কমিশনার নূর হোসেন নির্ঝর এর সাথে যোগাযোগ করা হলে তাহার সাথে সংযোগ স্থাপন করা সম্ভব হয়নি। জানতে চাইলে ওসি আব্দুল আহাদ জানান এ অভিযোগ টি আমাদের কাছে এসেছে, আমি ঘটনাস্থলে লোক পাঠিয়েছি,আমরা তদন্ত সাপেক্ষে রিপোর্ট টি আদালতে প্রেরন করবো, আদালতের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হবে এবং সকল ধরনের অপ্রিতিকর ঘটনা রোখতে আমরা পুলিশ প্রস্তুত রয়েছি।

সংবাদ শেয়ার করুন

themesbazartvsite-01713478536