Darpon TV-বরিশাল বিভাগী সাংবাদিক পরিষদ আয়োজিত ভাষা শহীদদের স্মরণে আলোচনা সভা

Darpon TV-বরিশাল বিভাগী সাংবাদিক পরিষদ আয়োজিত ভাষা শহীদদের স্মরণে আলোচনা সভা

বি এম মনির হোসেন, স্টাফ রিপোর্টারঃ-

তরুণ প্রজন্মের কাছে ভাষা আন্দোলনের প্রকৃত ইতিহাস তুলে ধরতে হবে বরিশাল বিভাগীয় সাংবাদিক পরিষদ আয়োজিত ভাষা শহীদদের স্মরণে এক আলোচনা সভা ২১ফেব্রুয়ারি সন্ধা ৭টায় সংগঠনের বিভাগীয় কার্যালয় তালুকদার ম্যানশন অমৃত লাল দে সড়ক (হাসপাতাল রোড) বরিশালে অনুষ্ঠিত হয়েছে। সভায় সভাপতিত্ব করেন বরিশাল বিভাগীয় সাংবাদিক পরিষদ’র সভাপতি কে এম শামছুদ্দোহা, অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে গুরুত্বপূর্ণ বক্তব্য রাখেন বরিশাল বিভাগীয় সাংবাদিক পরিষদের উপদেষ্টা মিডিয়া ব্যক্তিত্ব দৈনিক শাহনামা পত্রিকার সম্পাদক কাজী আবুল কালাম আজাদ, বীর মুক্তিযোদ্ধা শিক্ষাবিদ সর্বজনশ্রদ্ধেয় অধ্যাপক মহসিন উল ইসলাম হাবুল, মিডিয়াবান্ধব ব্যক্তিত্ব বিশিষ্ট সমাজসেবক ও দৈনিক বরিশাল বার্তা পএিকার সম্পাদক বিবিএসপির উপদেষ্টা আলহাজ্ব নুরুল আমিন(এম এ), সফল ব্যাংকার সোনালী ব্যাংকের ডিজিএম (অবঃ)মোহাম্মদ নাসির উদ্দিন তালুকদার, প্রমুখ। বক্তারা তাদের বক্তব্যে বলেন, ফেব্রুয়ারি আমাদের জাতীয় জীবনের অমর অধ্যায়। মাসটি যেমন বেদনার; তেমনই চেতনার অগ্নিমশাল। একুশের চেতনায় উজ্জীবিত হয়েই আমরা পেয়েছি স্বাধীন ও সার্বভৌম বাংলাদেশ। জাতীয় জীবনকে একটি স্বতন্ত্র মর্যাদায় অধিষ্ঠিত করার জন্য অমর একুশের সীমাহীন অবদানের কথা কখনোই ভোলার নয়। ভাষা আন্দোলনের মূল দাবি ছিল- সর্বস্তরে বাংলা ভাষার প্রচলন ঘটানো। কিন্তু আজও সর্বস্তরে বাংলা ভাষার প্রচলন হয়নি। এখনো উচ্চ শিক্ষা, অফিস-আদালতে ইংরেজির প্রাধান্য বিদ্যমান। আদিবাসীরা আজও তাদের মাতৃভাষায় পড়ালেখার অধিকার থেকে বঞ্চিত। তাই মাতৃভাষায় শিক্ষার প্রচলন করতে হবে। পাশাপাশি বাংলা ভাষায় প্রচুর সাহিত্য ও গবেষণায় অনুপ্রেরণা দিতে হবে।তরুণ প্রজন্মের কাছে ভাষা আন্দোলনের প্রকৃত ইতিহাস তুলে ধরতে হবে।তরুণ প্রজন্মকেও বাংলা ভাষার ব্যবহার ও চর্চার ক্ষেত্রে আরও সচেতন হওয়া উচিত। শুধু ফেব্রুয়ারি মাসে শহীদ বেদিতে ফুল দিয়ে ভাষার প্রতি উদারতা দেখানো, সোশ্যাল মিডিয়ায় ফলাও করে প্রচার করার মধ্যেই সীমাবদ্ধ না থাকুক। ভাষার ইতিহাস, শুদ্ধ চর্চা, মননে ধারন করার মধ্যেই একুশের চেতনা প্রতিফলিত হোক। বাংলাকে বিশ্ব দরবারে উপস্থাপন করার চর্চা চলুক। নিজ ভাষাকে ছোট না করে পাশাপাশি অন্যান্য ভাষা শিক্ষার চর্চা অব্যাহত থাকুক।বাংলা ভাষা কেবলই বাঙালি বা বাংলাদেশের মানুষের একমাত্র ভাষা নয়। আফ্রিকার দেশ সিয়েরালিওন বাংলাকে সে দেশের দ্বিতীয় ভাষা হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছে। বাংলাকে জাতিসংঘের দাপ্তরিক ভাষা হিসেবে স্বীকৃতি আদায়ের জন্য কাজ চলছে। আমাদের গৌরবের ইতিহাসকে বিশ্বের দরবারে তুলে ধরতে ২১ ফেব্রুয়ারিকে ‘আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস’র স্বীকৃতি দেওয়া হয়েছে। যা আমাদের জন্য সত্যিই গৌরবের।
অপসংস্কৃতির প্রভাবে পৃথিবীর বহু ভাষা হুমকির সম্মুখীন। শিক্ষিত তরুণ-তরুণী আজ বাংলার পরিবর্তে ইংরেজি রপ্ত করতেই বেশি আগ্রহী। উচ্চশিক্ষার ক্ষেত্রে বাংলা ভাষার ব্যবহার সীমিত। দেশের বিভিন্ন সাইনবোর্ড ইংরেজিতে লেখা। তাই মাতৃভাষাকে বুকে ধারন করে তরুণদের এগিয়ে যেতে হবে। যেন কখনো এ ভাষার বিলুপ্তি না ঘটে। ভাষার সঠিক ব্যবহার, মর্যাদা আমাদেরই নিশ্চিত করতে হবে। বক্তারা আরো বলেন অাজ ভাষা সৈনিকদের খোঁজখবর নেয়া হচ্ছে না। অনেকেই অনাহারে-অর্ধাহারে জীবন যাপন করছে। তাই ভাষা সৈনিকদের সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিতে রাষ্ট্রের কাছে আলোচনা সভা থেকে জোর দাবি জানানো। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন সংগঠনের সিনিয়র যুগ্ন সাধারন সম্পাদক মোঃ গিয়াস উদ্দিন। উপস্থিত ছিলেন বিবিএসপির সহ-সভাপতি দিপু তালুকদার,আইন বিষয়ক উপদেষ্টা অ্যাডভোকেট এমএ জলিল, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক মোঃ আব্দুর রহিম, প্রচার সম্পাদক শাহাদাত তালুকদার, নারী বিষয়ক সম্পাদক শামসুন্নাহার হাওয়া, যোগাযোগ ও উন্নয়ন বিষয়ক সম্পাদক সিহাব তোহা, তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক বেবী জেসমিন, সহ-প্রচার সম্পাদক আব্দুর রহমান, প্রকাশনা বিষয়ক সম্পাদক কাজী জাহিদ, কার্যনির্বাহী সদস্য মোঃ আফছার উদ্দিন মৃধা, মোঃ আবুল হোসেন, সৈয়দ জানে আলম লিখন,নূর মোহাম্মদ আরিফ সহ সংগঠনের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

সংবাদ শেয়ার করুন

themesbazartvsite-01713478536