সাতকানিয়ায় জুম বাংলাদেশের উদ্দ্যোগে শীতবস্ত্র ও শিক্ষা সামগ্রী বিতরণ

সাতকানিয়ায় জুম বাংলাদেশের উদ্দ্যোগে শীতবস্ত্র ও শিক্ষা সামগ্রী বিতরণ

রমজান আলী,সাতকানিয়া(চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি

সাতকানিয়া উপজেলায় কম্বল, শিশুদের পোষাক, শিক্ষা সামগ্রী ও আলোচনা সভা করেছে জুম বাংলাদেশ চট্টগ্রাম শাখা।

মির্জাখীল ডিলার পাড়া জামে মসজিদ মাঠে আয়োজিত অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন অবসর প্রাপ্ত সেনা কর্মকর্তা জাফর আহমদ।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তর চট্টগ্রাম জুন এর নির্বাহী প্রকৌশলী ইন্জিনিয়ার জালাল উদ্দিন, চট্টগ্রাম বন্দরের নির্বাহী প্রকৌশলী ইন্জিনিয়ার মোস্তফা ইকবাল, সাতকানিয়া উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা আব্দুস সালাম, চট্টগ্রাম মেডিকেলে কলেজের সহযোগী অধ্যাপক ডাক্তার সৈয়দ আমিনুল হক, সাতকানিয়া থানার ওসি আনোয়ার হোসেন, জুম বাংলাদেশের প্রতিষ্ঠাতা এসটি শাহিন, জুম বাংলাদেশ চট্টগ্রাম শাখার উপদেষ্টা সাইফুদ্দীন সিদ্দিকী, বশির আহমদ ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান বশির আহমদ, আন্দরকিল্লা প্রেস মালিক সমিতির সাংগঠনিক সম্পাদক সেলিম উদ্দিন চৌধুরী, জুম বাংলেদেশ প্রধান সমন্বয়ক রাজিব সরকার, সমন্বয়ক সাহাদাত উল্লাহ, সাইফুল ইসলাম চৌধুরী, আহমদ কবির ভেট্টা, ইউপি সদস্য আব্দুল মজিদ, শফিকুর রহমান ভুট্টো, উমর ফারুক।

অনুষ্ঠানে উদ্বোধনী বক্তব্য রাখেন জুম বাংলাদেশ চট্টগ্রাম শাখার প্রধান সমন্বয়ক মোস্তফা জাহেদ। অনুষ্ঠানে আগত অতিথিদের ফুল দিয়ে বরণ করে নেন জুম বাংলাদেশ চট্টগ্রাম শাখার সমন্বয়ক জুসনা হক ও চট্টগ্রাম শাখার সদস্যরা।

মোহাম্মদ শাহজাহানের পরিচালনায় উপস্থিত ছিলেন সাংবাদিক মামুনুর রশিদ, আলী মোহাম্মদ জিয়া, রিয়াজ উদ্দিন, শেখ মুন্না, ইফতি মুন্না, এরশাদ মুন্না, দেলোয়ার রশিদী, মিনহাজ, আব্দুল ওয়াহাব, রমজান আলী, মোহাম্মদ তারেক, আব্দুর রহমান সহ জুম বাংলাদেশ চট্টগ্রাম শাখার সদস্যরা।

অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, আমরা যারা শহরে থাকি তারা হয়তো শীতের তীব্রতা বুঝতেই পারছি না। তবে গ্রামের মানুষ কাঁপছে মাঘ মাসের তীব্র শীতে। শীত নিবারনের সামান্য বস্ত্রটুকুও হয়তো অনেকের নেই। শীতে জড়োসড়ো হয়ে পড়েছে তারা। যারা স্বচ্ছল তাদের কাছে শীতের রাত আরাম দায়ক হলেও দরিদ্র অসহায়দের জন্য তা চরম দুর্ভোগের।

বক্তারা আরো বলেন আপনারা যখন কম্বল মুড়ি দিয়ে উষ্ণতার মাঝে ডুবে আছেন একইসময় এসব শীতার্ত মানুষগুলো তখনো আপনার অপেক্ষায় আছে। আশায় আছে সমাজের স্ব”ছল বিত্তবানরা তাদের পাশে দাঁড়াবেন, শীতের চরম কষ্ট থেকে তাদের বাঁচাবেন।আসুন সবাই মিলে চেষ্টা করি। শীতার্ত মানুষের গায়ে জড়িয়ে দিই এক টুকরো গরম কাপড়।

সবাইকে শীতবস্ত্র বিতরণ কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ করার অনুরোধ জানান বক্তারা। বক্তারা আরো বলেন আপনার সামান্য ত্যাগের বিনিময়ে শীতের কষ্ট থেকে মুক্তি পাবে একজন অসহায় মানুষ, একটি দরিদ্র পরিবার।

সংবাদ শেয়ার করুন

themesbazartvsite-01713478536