আজ শুভ দীপাবলি,শক্তির আরাধনায় মেতে উঠবে সনাতন ধর্মাবলম্বীরা।

আজ শুভ দীপাবলি,শক্তির আরাধনায় মেতে উঠবে সনাতন ধর্মাবলম্বীরা।

আমিনুল হক
বিশেষ প্রতিনিধি

আজ কালীপুজো ও দীপাবলি।শক্তির আরাধনায় মেতে উঠে বাংলা। সহস্র প্রদীপ জ্বেলে দেশের সনাতন ধর্মাবলম্বীরা উদযাপন করবেন দীপাবলি উৎসব ও কালীপুজা।হালকা হালকা শীতের আমেজ শুরু হয়েছে আর বাংলার মাঠ ঘাট জুড়ে মা কালীর আগমনী বার্তা বেজে উঠেছে।

বাঙালির সবথেকে জনপ্রিয় কয়েকটি উৎসবের মধ্যে অন্যতম কালীপুজো বা শ্যামা পূজা।এই পূজাকে ঘিরে প্রত্যেক বাঙালির উৎসাহ-উদ্দীপনার শেষ থাকেনা।ভক্তিভরে মায়ের আরাধনা আর তার সঙ্গে অনেক হাসি মজা আনন্দ আর আবেগ মিশে থাকে। দূর্গা পূজার আনন্দ চারদিনের হলেও কালীপূজা মাত্র এক দিন স্থায়ী হয়।এখন তা বেড়ে দুই থেকে তিন দিন পর্যন্ত বজায় থাকে।জাতি ধর্ম বর্ণ নির্বিশেষে প্রত্যেক বাঙালি এই আনন্দ উৎসবে শামিল হয়। কালীপুজোর মূলমন্ত্র হলো মনের কালিমা দূর করে শুদ্ধতা আর সুচিতা র আলোকে নিজেদের জীবন পূর্ণ করা।কালী পূজার সাথে বাঙালিরা দীপাবলি উৎসব পালন করে।অমাবস্যার আধার কাল কে প্রদীপের আলোয় ভরিয়ে তোলে প্রতিটি বাঙালি গৃহ। অশুভ শক্তির নিধন আর শুভ শক্তির জাগরণ এই উৎসবের সারকথা।

হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের কাছে দীপাবলি একটি বড় উৎসব।এইসময় চারিদিক আলোর রোশনাইয়ে সেজে ওঠে। আট থেকে আশি সকলে মেতে ওঠে খুশিতে। কার্তিক মাসের কৃষ্ণপক্ষের অমাবস্যা তিথিতে দীপাবলী ও কালী পুজো দুই-ই পালিত হয়। দীপাবলীর দিন প্রদোষ কালে লক্ষ্মী পুজো করা হয়,আবার এই দিন মধ্যরাতেই মা কালীর আরাধনায় মেতে উঠেন বাঙালিরা।মূলত বাঙালি, অসমিয়া ও ওড়িয়ারা দীপাবলির সময় কালীপূজা করে থাকেন। আলোকসজ্জা ও আতসবাজির উৎসবের মধ্য দিয়ে সারা রাত্রিব্যাপী কালীপূজা অনুষ্ঠিত হয়।।

এই উৎসব উপলক্ষে, প্রতি বছর কার্তিকের অমাবস্যার দিনে সবাই বাড়ি-ঘর আলো দিয়ে সাজায়,প্রিয়জনদের সঙ্গে উৎসবের আনন্দ ভাগ করে নেয়।

সংবাদ শেয়ার করুন

হযরত আলহাজ্ব শাহ মৌলানা হাফেজ আহমদ (রহঃ) শাহ্ সাহেব কেবলা চুনতী কর্তৃক প্রবর্তিত ঐতিহাসিক ১৯ দিন ব্যাপী সীরতুন্নবী (সঃ) মাহফিল এর ৫১তম মাহফিল উপলক্ষে চট্টগ্রাম শহরের প্রস্তুতি সভা ১২ অক্টোবর ২০২১ নগরীর রীমা কনভেনশন হলে আলহাজ্ব মাওলানা হাফিজুল ইসলাম আবুল কালাম আজাদ এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়।

পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত করেন দারুন উলুম আলীয়া মাদ্রাসা ছাত্র সংসদ জিএস শেখ সুলতান রাফি। নাতে রাসুল সঃ পাঠ করেন তামজিদুর রহমান, আবদুল হাদি। স্বাগত বক্তব্য রাখেন সমাজ সেবক ও চুনতী হাকিমিয়া কামিল মাদ্রাসার সাবেক অধ্যক্ষ আলহাজ্ব মাওলানা হাফিজুল হক নিজামী। হাজার হাজার আশেকানে ভক্তের উপস্থিতিতে যাহেদুর রহমান ও কশশাফুল হক শেহজাদ এর সঞ্চালনায় মাহফিল এর সফলতা ও সার্বিক সহযোগিতার প্রত্যাশা নিয়ে বক্তব্য রাখেন অবসরপ্রাপ্ত অতিরিক্ত সচিব এডিএম আবদুল বাসেত দুলাল, নির্বাহী কমিটির প্রধান সমন্বয়কারী আলহাজ্ব মোহাম্মদ ইসমাঈল মানিক, সিটি কর্পোরেশন প্যানেল মেয়র ও দেওয়ান বাজার ওয়ার্ড কাউন্সিলর চৌধুরী হাসান মাহমুদ হাসনী, আল্লামা ফজলুল্লাহ ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান ড, আবুল আলা মোহাম্মদ হোসামুদ্দীন, লোহাগাড়া সমিতি চট্টগ্রাম সভাপতি শফিক উদ্দিন, অলিউদ্দিন মোহাম্মদ, প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয় ইংরেজি ভাষা ও সাহিত্য বিভাগের প্রধান অধ্যাপক সাদাত জামান খান মারুফ, চুনতি ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান জয়নুল আবেদীন জনু, তৈয়বুল হক বেদার, কাজি আরিফুল ইসলাম, আসমা উল্লাহ ইমরাত। এতে আরো উপস্থিত ছিলেন মোতোয়াল্লী কমিটির সদস্য আবু তাহের, মাহবুবুল হক, ইদ্রিস মিনহাজ, নির্বাহী কমিটির সদস্য ওবাইদুল মান্নান রোকন, প্রফেসর হামিদুল হোসেন ছিদ্দিকী, ওয়াহিদুল হক, মাওলানা জাফর সাদেক মিয়াজী, আবু হেনা টুটুল, চুনতি সমাজ কল্যাণ সম্পাদক এডভোকেট মিনহাজুল আবরার, মাওলানা কফিল উদ্দিন, মাওলানা এবাদুর রহমান, কামরুল হুদা, জয়নাল আবেদীন শবাব, মোহাম্মদ নাঈম নিমু, সাদুর রহমান, মাহমুদ জামান খান, আবদুল ওয়াহেদ সোহেল, শাহাদাত খান ছিদ্দিকী, ইব্রাহীম মোহাম্মদ, আরিফ ইয়াসির, আবরারুল হক মুকুট প্রমুখ। মীলাদ পরিচালনা করেন মাওলানা আবু দাউদ মোহাম্মদ শাহ শরীফ এবং মুনাজাত পরিচালনা করেন মোতোয়াল্লী কমিটির সদস্য আলহাজ্ব মাওলানা কাজী নাছির উদ্দিন। চুনতি ক্লাব সমূহ আনজুমান ই নওজোয়ান, শিকড়, দীপিত, নুরানী, চিরহরিৎ, নিরেট, প্রয়াস, অর্ণব, অগ্রাহী, সংস্মৃতি, সন্দীপন, অনির্বাণ, এলায়েন্স ও ক্লাব-৭১ এর সার্বিক সহযোগিতা ও স্বেচ্ছাসেবক বৃন্দ প্রস্তুতি সভা সফল আয়োজনে অনবদ্য ভূমিকা পালন করেন। উল্লেখ্য, আগামী ১৮ অক্টোবর ২০২১ হতে ৫১তম মাহফিল এ সীরতুন্নবী (সঃ) আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন এবং ৫ নভেম্বর দিবাগত রাত আখেরি মোনাজাতের মাধ্যমে শেষ হবে ইনশাআল্লাহ।
স-িতাজ২৪.কম/এস.টি

১৯ দিনব্যাপী সীরতুন্নবী (সঃ) মাহফিল এর চট্টগ্রাম শহর কেন্দ্রিক প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত

themesbazartvsite-01713478536