লোহাগাড়ায় রাতের আধারে এক ছিন্নমূল অসহায় মানুষের পাশে ইউপি সদস্য সুজিৎ বড়ুয়া কাজল

লোহাগাড়ায় রাতের আধারে এক ছিন্নমূল অসহায় মানুষের পাশে ইউপি সদস্য সুজিৎ বড়ুয়া কাজল

“মানুষ মানুষের জন্য, জীবন জীবনের জন্য” এই স্লোগানকে সামনে রেখে রাতের আধারে লোহাগাড়া উপজেলার আমিরাবাদ পুরান থানার গেইট থেকে ঠিক একটু পূর্বদিকে (১০০গজ) ভিতরে তিন ধরে না খেয়ে রাস্তায় পড়ে থাকা এক ছিন্নমূল অসহায় ফারজানা আক্তার নামে এক মহিলাকে খাদ্য, বস্ত্র এবং থাকার ব্যবস্থা করে দিয়ে একটি মাবতার দৃষ্টান্তস্থাপন করেছেন পুটিবিলা ২নং ওয়ার্ড ইউপি সদস্য ও প্যানেল চেয়ারম্যান একধম সহজ-সরল, হাস্যউজ্জল মানবপ্রেমিক ব্যক্তি বাবু সুজিৎ বড়ুয়া কাজল।

গত ২৯ অক্টোবর”২০২০ইং বৃহস্পতিবার রাত ৯টার দিকে পুটিবিলা ২নং ইউপি সদস্য ও চেয়ারম্যান প্যানেল-১ বাবু সুজিৎ বড়ুয়া কাজল হঠাৎ অসুস্থ ছিন্নমূল অসহায় ফারজানা আক্তারকে দেখেতে পান। পরে তার কষ্টের কথা শুনে নিজেই তদারকি করে এই মহান সহানুভূতি টা দেখানো হয়।

জানা যায়, লোহাগাড়া উপজেলার পদুয়া ইউনিয়নের চট্র’লা পাড়া গ্রামের বাসিন্দা আসহাব মিয়ার প্রথম স্ত্রীর দ্বিতীয় মেয়ে ফারজানা আক্তার (২২)। ফারজানা আক্তার ছোট থাকা অবস্থায় তার মা ক্যানসার রোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু বরণ করেন। এরপর থেকে তিনি বাবার হাতে বড় হয়। বাবা দ্বিতীয় বিবাহ করার পর থেকে ফারজানা আক্তারের স্থান আর বাড়িতে হল না।
মা থাকা অবস্থায় ফারজানা আক্তার উত্তর আমিরাবাদ এমবি-এ হাইস্কুল থেকে অষ্টম শ্রেণী পর্যন্ত লেখাপড়া করেন। পরে টাকার অভাবে এবং সৎ মায়ের কারণে বাকী লেখাপড়া করতে পারেনি। ফারজানা আক্তার লেখাপড়া করে ভবিষ্যৎ-এ মানুষের মত মানুষ হওয়ার স্বপ্ন দেখেছিল, কিন্তুু তার স্বপ্ন বাস্তবায়ন হল না। পরে সৎ মা ফারজানা আক্তারকে বাড়ি থেকে বাহীর করে দেই। এরপর থেকে ফারজানা আক্তারের দিন-রাত কাটাতে হচ্ছে রাস্তার দ্বারে দ্বারে।নেই কোন খাবার,নেই কোন ভালো পোষাক।রাস্তার পাশে না খেয়ে এভাবে দিন কাটায়।বাড়ি থেকে বাহীর করে দেওয়ার পরথেকে বিভিন্ন ধরনের রোগে ভোগতেছে।এখন তার একটাই ভরসা, কবে কখন এক মুঠো খাবার দেবে সে আশায় বসে থাকে। তার বর্তমানে অসুস্থ শরীর নিয়ে কোন কাজ করা তার পক্ষে সম্ভব না।

এসময় সুজিৎ বড়ুয়া কাজল জানান, এই ছিন্নমূল অসহায় মানুষের সহযোগীতায় আসতে পেরে আমি নিজেকে ধন্য মনে করছি। এই অসহায় মানুষদের পাশে দাঁড়ানো আমার এবং আপনাদের দায়িত্ব বলে আমি মনে করি। তাই সবাইকে এই ছিন্নমূল অসহায় মানুষদের পাশে থেকে মানবতার হাতকে আরো প্রসারিত করার আহ্বান জানান তিনি।

এদিকে ছিন্নমূল অসহায় ফারজানা আক্তার বলেন, আমি তিন ধরে কিছুই খাইনি।আমার অনেক কষ্ট হয়।আমার সৎ মা আমাকে বের করে দেওয়ার পর থেকে এক বছর পর্যন্ত আমি মানুষের দ্বারে দ্বারে দুই মুঠো ভাতের অভাবে রাস্তায় রাস্তায় দিন কাটায়। আজকে আমাকে এক ব্যক্তি অনেক কিছু সহযোগীতা করেছে।
আজকে আমার অনেকটাই ভাল লাগতেছে। গত ৩দিন ধরে আমি কিছু খেতে না পারাই ক্ষুধার জালাই বিভিন্ন স্থানে গিয়ে কিছু ভিক্ষা চেয়েছিলাম।কিন্তুু কেও আমাকে খাবার দিল না।আজকে হঠাৎ করে এক মহান ব্যক্তি আমাকে কাপড়, সাবান, খাবার এবং অনন্ত আজকে রাতটা পর্যন্ত থাকার ব্যবস্থা করে দিয়েছে।
আমি এই মানবিক সহানুভূতির ভূয়সী প্রশংসা করছি এবং এই ধরনের মহান ব্যক্তির জন্য সৃষ্টিকর্তার কাছে প্রার্থনা করছি।

সংবাদ শেয়ার করুন

themesbazartvsite-01713478536