করোনায় দুশ্চিন্তা ও আমাদের করণীয়।Darpon TV(সত্যের প্রতিচ্ছবি)

করোনায় দুশ্চিন্তা ও আমাদের করণীয়।Darpon TV(সত্যের প্রতিচ্ছবি)

বর্তমান সময়ের সবচেয়ে আলোচিত বিষয় (Covid-19) করোনা ভাইরাস। ২০১৯ সালের ডিসেম্বর মাসে চীনের উহান শহর থেকে যার সূত্রপাত হয়। যার ভয়াবহতা অল্পদিনের মধ্যে আমেরিকা,যুক্তরাষ্ট্র, রাশিয়া,চীনসহ পৃথীবির বিভিন্ন দেশে ছড়িয়ে পড়ে।পৃথিবীব্যপী আক্রান্তের সংখ্যা ৩ কোটি ছাড়িয়ে মৃতের সংখ্যা প্রায় ১০ লাখে পৌঁছেছে।

বাংলাদেশে মার্চ মাসে প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হলেও এখন অবদি আক্রান্তের সংখ্যা ৩ লাখ ছাড়িয়ে মৃতের সংখ্যা প্রায় ৫ হাজারের কাছাকাছি।স্বাস্থঝুকি কমানোর জন্য প্রথমদিকে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান সহ দেশের একাদিক জায়গায় লগডাউন করা হয়েছে।

প্রথমদিকে লগডাউনকে মানুষ স্বাভাবিকভাবে গ্রহণ করলেও সময়ের ব্যবধানে জীবিকার তাগিদে অনেকে লগডাউন ভঙ্গ করে কর্মস্থলে বেড়িয়ে পড়ে।সময়ের বিবেচনায় বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান খুলে দিলেও মার্চের ১৯ থেকে আজ অবদি প্রায় সাত মাস ধরে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে।

দীর্ঘদিন করোনা পরিস্থিতির কারনে অসংখ্য সমস্যার সম্মুখীন হচ্ছে বিভিন্ন শ্রেণির মানুষ। যার মধ্যে অনেক মানুষ তাদের চাকুরী হাড়িয়েছে। শহরমুখী লাখো স্বপ্ন বুনা মানুষগুলো তাদের স্বপ্ন বিসর্জন দিয়ে অসহায় হয়ে গ্রামে ফিরে যান। এভাবে অসংখ্য মানুষের স্বপ্ন আজ দুঃস্বপ্নে পরিণত হয়েছে।

সবচেয়ে ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে অধ্যয়ণরত কয়েক লাখ শিক্ষার্থী। দীর্ঘদিন প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় শিক্ষার্থীরা যেমনিভাবে পড়াশোনা থেকে দূরে সরে যাচ্ছে তেমনিভাবে তাদের মধ্যে হতাশা কাজ করছে। লাখো শিক্ষার্থীদের শিক্ষাজীবন থেকে একটি বছর হারিয়ে যাওয়ার পথে শুধু তাই নয় দীর্ঘ সময় তারা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বাহিরে থাকায় অনেকে মানসিকভাবে ভেঙে পড়েছে।

এবং হাজারো মধ্যবিত্ত শিক্ষার্থী রয়েছে যারা টিউশনি করে নিজেদের পড়াশুনার খরচ বহন করত এবং পরিবারকে সাহায্য করত। শিক্ষা প্রতিষ্ঠান দীর্ঘ বন্ধের কারণে তারা আজ অসহায় ভাবে দিনাতিপাত করছে এবং সবার একটাই প্রশ্ন এর শেষ কোথায়?

(Covid-19)করোনাভাইরাসে যখন পৃথিবী স্থবির হয়ে গেছে তখন মানুষ তাদের স্বাভাবিক গতি হারিয়ে অসাভাবিক জীবন যাপন অতিবাহিত করছে। এমতাবস্থায় সকলের উচিত ভেঙে না পড়ে মানসিকভাবে নিজেকে তৈরি করা।

(Covid-19) বর্তমান সময়ে সবচেয়ে বড় বিপদ তাই এ বিপদ থেকে সবাইকে আল্লাহর কাছে সাহায্য চাওয়া উচিৎ কেননা হযরত মুহাম্মদ (স:) বিপদের সময় বেশি বেশি দোয়া ইউনুস পড়তেন এবং “ইয়া হাইয়্যু ইয়া কাইয়্যুমু বিরাহমাতিকা আস্তাগিছু,আসলিহ লিসাঅনি কুল্লুহু, ওয়ালা তাকিলনি ইয়া নাফসি ত্বারফাতা আনিন”
অর্থ: হে চিরঞ্জীব, হে সৃষ্টিকুলের নিয়ন্ত্রক, আপনার কাছে সাহায্য প্রার্থনা করছি আপনি আমার সকল বিষয় শুদ্ধ করে দিন এক মুহূর্তের জন্যও আপনি আমাকে আমার উপর ছেড়ে দিবেন না।

সর্বোপরি সবাইকে এই বিপদ থেকে মুক্তির জন্য ধৈর্যের সাথে পরিস্থিতি মোকাবেলা করতে হবে কেননা আল্লাহ পবিত্র কোরআনে ঘোষণা করেছেন, “নিশ্চয় আল্লাহ ধৈর্যশীলদের সাথে আছেন “তাই আমাদের উচিত সকল কিছুর ঊর্ধ্বে গিয়ে নিজেদের ভুলের স্বীকৃতি দিয়ে এক আল্লাহর দিকে ধাবিত হওয়া তাহলে আল্লাহ আমাদের এ বৈশ্বিক মহামারী থেকে মুক্ত করে স্বাভাবিক জীবনে ফিরিয়ে দিবেন এই প্রত্যাশা।।

মো.মমিন উদ্দিন
বাংলা সাহিত্য বিভাগ
ঢাকা কলেজ,ঢাকা।

সংবাদ শেয়ার করুন

themesbazartvsite-01713478536