কুমিল্লা লাকসামে জেলা প্রশাসকের বিভিন্ন অর্থায়নে বরাদ্ধকৃত প্রকল্প পরিদর্শন

কুমিল্লা লাকসামে জেলা প্রশাসকের বিভিন্ন অর্থায়নে বরাদ্ধকৃত প্রকল্প পরিদর্শন

আমিনুল হক
বিশেষ প্রতিনিধিঃ-

কুমিল্লার লাকসামে জেলা প্রশাসক বিভিন্ন দপ্তরের অর্থায়নে বরাদ্ধকৃত চলমান উন্নয়ন প্রকল্পের বিভিন্ন কার্যক্রম পরিদর্শন, উপকরন বিতরন ও মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। উপজেলার ৫নং গৌবিন্দপুর ইউনয়নের মোহাম্মদপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে গতকাল সোমবার দুপুরে এ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।

উক্ত মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন, কুমিল্লা জেলা প্রশাসক মোঃ আবুল ফজল মীর।

গোবিন্দপুর ইউনয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নিজাম উদ্দিন শামীমের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথী হিসাবে বক্তব্য রাখেন, উপজেলা চেয়ারম্যান এডভোকেট ইউনুছ ভুইয়া,উপজেলা নির্বাহী অফিসার এ কে এম সাইফুল আলম, পৌর মেয়র অধ্যাপক আবুল খায়ের, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মহব্বত আলী।

এ সময় উপজেলা ভুমি অফিসের আওতায় ভূমিহীনদের মাঝে নতুন বন্দোবস্তকৃত ভুমির খতিয়ান প্রদান, এলজিএসপির-৩ অধিনে সেলাই মেশিন, ফগারমেশিন, চিকিৎসা সরঞ্জাম, স্বাস্থ্য সুরক্ষায় মাস্ক, সাবান ও ব্লিচিং পাউডার বিতরন, ছাত্রীদের মাঝে স্যানিটারি ন্যাপকিন বিতরন। সমাজ সেবা অফিসের আওতায় বয়স্ক, বিধবা, প্রতিবন্ধিদের ভাতা প্রদান। এডিপি’র আওতায় প্রতি স্কুলে খেলাধুলার সামগ্রী বিতরন। প্রকল্প দপ্তরের আওতায় শিশু খাদ্য বিতরন ও হতদরিদ্রদের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরন। কৃষি অফিসের আওতায় শাক সবজির বীজ বিতরন। মৎস্য অফিসের আওতায় জেলেদের মাঝে এ.আই.জি.এ এর আওতায় সেলাই মেশিন বিতরন। জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অফিস আওতায় আর্সেনিকমুক্ত টিউব্রয়েল, পাম্প, ওয়াটার ট্যাংক বিতরন করেন।
উক্ত অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, সহকারি কমিশনার ভুূমি উজালা রানী চাকমা, থানা ভারপ্রাপ্তকর্মকর্তা মোঃ নিজাম উদ্দীন, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এডভোকেট রফিকুল ইসলাম হিরা, উপজেলা প্রশাসনের কর্মকর্তা- কর্মচারী, স্থানীয় আওয়ামী লীগ ও অঙ্গসংগঠন সহ সার্বজনিন নেতৃবৃন্দ প্রমুখ।

সংবাদ শেয়ার করুন

ইব্রাহিম সুজন, নীলফামারী প্রতিনিধ

নীলফামারীর সৈয়দপুরে জমিজমা সংক্রন্ত বিরোধের জেরে প্রতিপক্ষের সাজানো মিথ্যা মামলায় ফেলে এক নিরীহ পরিবারকে হয়রানির অভিযোগ উঠেছে। ঘটনাটি ঘটেছে-নীলফামারী জেলার সৈয়দপুর উপজেলা কয়াগোলাহাট ঘোনপাড়া এলাকায়৷ অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, বিগত ৭৯ বছর পূর্বে বসতি স্থাপন করে স্থানীয়রা রাস্তার উপর দিয়ে চলাচল করে আসছি৷ সম্প্রতি পারিবারিক কলহের জেরে চলাচলের রাস্তা বন্ধ করে প্রতিপক্ষ৷ পরবর্তীতে ৯৯৯ নম্বরে ফোন করে পুলিশ এসে রাস্তা খুলে দিলেও পুলিশ চলে যাবার পরে রাস্তাটি পুনরায় বন্ধ করে দেয় প্রতিপক্ষ৷ পরবর্তী স্থানীয়দের সহোযোগিতায় বাড়ির বিকল্প রাস্তা দিয়ে যাতায়াত করলেও গত ২৬র্মাচ এ বিকল্প চলাচলের রাস্তাটিও বন্ধ করে দেয়া হয় । এতে বাধা দিলে সিরাজুল ইসলাম ও তার ভাই আজিজুল হক ও শফিকুল ইসলামের পরিবার এ-র উপর আতর্কিত হামলা করে বাড়ী ঘরের বেড়া, চেয়ার, টেবিল ভাংচুর করে ধারালো অস্ত্রসহ(হাচুয়া,বটি,দা) লোহার মোটা পাইপ দিয়ে এলোপাতাড়ি মারপিট করে প্রতিপক্ষ সিরাজুলরা। আহতদের অবস্থা গুরুতর হলে উন্নত চিকিৎসার জন্য রংপুরে নেয়া হয় (ওসিসি বিভাগের রিপোর্টের ভিত্তিতে সিরাজুল ও শফিকুলদের আসামী করে সৈয়দপুর থানায় মামলা করে ভুক্তভোগী পরিবারটি৷ এদিকে, মামলাটি থানায় দেয়ার পর থেকেই ভুক্তভোগী পরিবারটির উপর বিভিন্ন ধরনের হুমকী ধামকি বিদ্যমান রেখেছে প্রতিপক্ষ৷ ভুক্তভোগী পরিবারের আতিয়ার রহমান খোশো বলেন, আমি রংপুর বিভাগের রংপুর বীর উত্তম শহীদ সামাদ স্কুল এন্ড কলেজের বিজ্ঞান বিষয়ক সহকারী শিক্ষক । ঘটনার দিন আমি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে উপস্থিত ছিলাম, এই মর্মে প্রতিষ্ঠান প্রিন্সিপাল মহোদয় প্রত্যায়ন পত্র প্রদান করেন। শফিকুলেরা অপরাধ সংঘটিত করে আগেই মামলা দায়ের করেন৷ আমি উপস্থিতি না থাকলেও আমাকে আসামির শ্রেনীভুক্ত করা হয়েছে৷ এমনকি, সৈয়দপুর পুলিশ ফাঁড়িতে আমার কল রেকর্ড আছে এবং ঐ কল রেকর্ড ট্রাকিং করে দেখা গেছে আমি ঐদিন সকাল থেকে রাত পর্যন্ত ২৬ শেষ মার্চের জাতীয় অনুষ্ঠানে গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালনে যুক্ত ছিলাম, শুধু মাত্র আমাকে হয়রানি করার জন্য এবং আমার সন্মান হানি করার জন্য হয়রানি মূলক মিথ্যা সাজানো মামলা করা হয়েছে৷ এ অভিযোগ প্রসঙ্গে শিক্ষকের বিরুদ্ধে করা মামলার বাদী শফিকুল ইসলাম মুঠোফোনে বলেন, আতিয়ার রহমান খোশো তাদের সম্পর্কে আত্মীয় আমাদের সাথে জগড়া লাগলে তিনি তাদের পরামর্শ ও শেল্টার দেন। তাই ওনাকে আসামি করা হয়েছে। আমাদের জমিজমা নিয়ে বিরোধ আছে। তারাও আমাদের বিরুদ্ধে মামলা করেছে তাই আমরাও তাদের বিরুদ্ধে মামলা করেছি৷ তবে, মামলার সূষ্ঠ তদন্ত দাবি করেন সহকারী শিক্ষক আতিয়ার রহমানসহ অন্যান্য ভুক্তভোগীর।

নীলফামারীতে মিথ্যা মামলায় ফেলে নিরীহ পরিবারকে হয়রানির অভিযোগ

ন‌ওগাঁর আত্রাইয়ে রবীন্দ্র কাচারি বাড়ি পতিসরে সাংস্কৃতিক বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সহযোগিতায় এবং জেলা প্রশাসনের আয়োজনে ১৬১তম রবীন্দ্র জন্মোৎসব অনুষ্ঠিত হয়েছে। এবারের প্রতিপাদ্য বিষয় “মানবতার সংকট ও রবীন্দ্রনাথ”। আজ রবিবার (৮ মে) সকাল ১০টায় জেলা প্রশাসক জনাব মোঃ খালিদ মেহেদী হাসান এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানটি অনুষ্ঠিত হয়।
প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বীর মুক্তিযোদ্ধা ও বাংলাদেশ সরকারের খাদ্য মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব প্রাপ্ত মাননীয় মন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার, এমপি।

বিশেষ অতিথি ছিলেন, জনাব মোঃ শহীদুজ্জামান সরকার এমপি ( ন‌ওগাঁ-২), জনাব মোঃ ইমাজ উদ্দিন প্রামাণিক এমপি ( ন‌ওগাঁ-৪), জনাব মোঃ ছলিম উদ্দিন তরফদার এমপি ( ন‌ওগাঁ-৩), জনাব মোঃ নিজাম উদ্দিন জলিল (জন) এমপি ( ন‌ওগাঁ-৫), জনাব মোঃ আলহাজ্ব আনোয়ার হোসেন হেলাল এমপি ( ন‌ওগাঁ-৬), জনাব মনিরুল আলম, অতিরিক্ত সচিব সাংস্কৃতিক বিষয়ক মন্ত্রণালয়, জনাব আব্দুল মান্নান মিয়া, বিপিএম পুলিশ সুপার ন‌ওগাঁ জেলা, জনাব মোঃ আব্দুল মালেক, সভাপতি ন‌ওগাঁ জেলা আওয়ামীলীগ, এ্যাডভোকেট একেএম ফজলে রাব্বী বকু, প্রশাসক জেলাপরিষদ, ন‌ওগাঁ।

স্বাগতবক্তব্য দেন, আত্রাই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ ইকতেখারুল ইসলাম।

আলোচকবৃন্দ, অধ্যক্ষ (অব:) রাজশাহী কলেজ, রবীন্দ্র বিশেষজ্ঞ, প্রফেসর ড. মোঃ আশরাফুল ইসলাম , সাবেক সভাপতি বাংলা বিভাগ, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়, প্রফেসর ড. পি এম সফিকুল ইসলাম ,
পরিচালক বরেন্দ্র গবেষণা জাদুঘর, রাজশাহী, প্রফেসর ড. আলী রেজা আব্দুল মজিদ , সহযোগী অধ্যাপক বাংলা বিভাগ, ন‌ওগাঁ সরকারি কলেজ,
ড. মোহাম্মদ শামসুল আলম।

আরও উপস্থিত ছিলেন, আত্রাই উপজেলা চেয়ারম্যান জনাব আলহাজ্ব এবাদুর রহমান প্রামানিক, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ( পুরুষ) হাফিজুর রহমান, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ( মহিলা) মমতাজ বেগম, আত্রাই থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবুল কালাম আজাদ, উপজেলা আওয়ামীলীগের নেতাকর্মী, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের মুক্তিযোদ্ধাবৃন্দ, উপজেলা প্রশাসনের সকল কর্মকর্তা, ন‌ওগাঁ থেকে আগত ও আত্রাইয়ের সকল সাংবাদিকবৃন্দ, আগত দর্শনার্থীসহ এলাকাবাসী।

সামসুজ্জামান সেন্টু
আত্রাই উপজেলা প্রতিনিধি
তারিখঃ- ০৮/০৫/২০২২ ইং

ন‌ওগাঁর আত্রাইয়ে ১৬১ তম রবীন্দ্র জন্মোৎসব পালিত

themesbazartvsite-01713478536