ভারতীয় সীমান্তে রেলপথ নির্মাণ কাজ পরিদর্শনে রেলমন্ত্রী।

ভারতীয় সীমান্তে রেলপথ নির্মাণ কাজ পরিদর্শনে রেলমন্ত্রী।

আব্দুর রউফ, নীলফামারী প্রতিনিধিঃচিলাহাটি ভারতীয় সীমান্তে রেলপথ নির্মাণ কাজ পরিদর্শন করেন, রেলমন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজন (এমপি)
নীলফামারী ডোমার উপজেলার ডাঙ্গাপাড়া ভারতীয় সীমান্তবর্তী ৭৮২ মেইন পিলারের পাশদিয়ে ভারতের সাথে রেল সংযোগ সহ বাংলাদেশের ভুখন্ডে চিলাহাটি রেল স্টেশন পর্যন্ত প্রায় নতুন রেলপথ নির্মান (মেইনলাইন) ৬.৭২৪ কি.মি. এবং নতুন রেলপথ নির্মান (লুপলাইন) ২.৩৬ কি.মি. সহ বিভিন্ন বাণিজ্যিক কর্মকান্ডের লক্ষে বাংলাদেশের চিলাহাটি-ভারতের হলদিবাড়ি রেলপথ নির্মান কাজ শুরু হয় ২০১৯ইং সালের ২১শে সেপ্টেম্বর।

সেই কাজের অগ্রগতি সহ বিভিন্ন রেলের উন্নয়নমূলক কাজের পরিদর্শনে আসেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় রেলপথ মন্ত্রী মোঃ নূরল ইসলাম সুজন (এমপি) আজ ২৮/০৮/২০২০ইং শুক্রবার বিকালে আসেন।

প্রথমেই তিনি চিলাহাটিতে প্রবেশ করে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান ম্যাক্স ইনফ্রাস্ট্রাকচার লিমিটেডের চত্তরে পুলিশ প্রসাশনের পক্ষ থেকে রেলমন্ত্রীকে গার্ড অফ অনার প্রদান করা হয়। এরপর রেলমন্ত্রী নীলফামারী জেলার ডোমার উপজেলার ভারতীয় সীমান্তবর্তী বাংলাদেশের ভুখন্ড পর্যন্ত ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান ম্যাক্স ইনফ্রাস্ট্রাকচার লিমিটেডের কাজ পরিদর্শন করেন। সেখানে নীলফামারী ৫৬ বিজিবির পক্ষ থেকে রেলমন্ত্রীকে সম্মান প্রদর্শন করা হয়।

পরে চিলাহাটি রেল স্টেশনের পূর্বকোনে ব্যক্তি মালিকানাধীন প্রায় ৯ একর জমি অধিগ্রহনের জন্য জমির মালিকদের সঙ্গে কথা বলে চিলাহাটি রেল স্টেশনে এলাকাবাসীর উদ্দেশ্যে সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে রাখেন, তিনি বলেন, বাংলাদেশের মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে সারাদেশে উন্নয়নের অগ্রযাত্রা এগিয়ে চলছে। তারি ধারাবাহিকতায় চিলাহাটি রেল স্টেশনটি আন্তর্জাতিক রেল স্টেশন হিসেবে কাজ এগিয়ে চলছে।

আগামি ২০২১ সালের ২৫শে মার্চের মধ্যেই এই রেলপথ নির্মান কাজ সমাপ্ত করে ভারতের সঙ্গে রেল যোগাযোগ চালু করা হবে। অপরদিকে চিলাহাটিকে কিভাবে উপজেলায় রূপান্তির করা যায়, সে ব্যপারে তিনি উপর মহলের সঙ্গে যোগাযোগ অব্যাহত রাখবেন।
এ সময় রেল সচিব সেলিম রেজা, রেলপথ পশ্চিমাঞ্চলের জি.এম. মেহেরকান্তী গুহ, ডোমার-ডিমলার সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা আফতাব উদ্দীন সরকার, নীলফামারী জেলা প্রশাসক হাফিজুর রহমান চৌধুরী, নীলফামারী ৫৬ বিজিবির অধিনায়ক লে.কর্নেল.মামুনুল হক মামুন, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মোকলেছুর রহমান, ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান ম্যাক্স ইনফ্রাস্ট্রাকচার লিমিটেডের প্রকল্প পরিচালক রোকোনুজ্জামান শিহাব, ডোমার উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান তোফায়েল আহমেদ, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শাহিনা শবনম, বাংলাদেশ যুব মহিলা লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-শিক্ষা, প্রশিক্ষণ ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক সরকার ফারহানা আখতার সুমি, ডোমার থানা অফিসার ইনচার্জ মোস্তাফিজার রহমান প্রমূখ উপস্থিত ছিলেন।

সংবাদ শেয়ার করুন

themesbazartvsite-01713478536