ফেঞ্চুগঞ্জের মাইজগাও ইউনিয়নে পুরানগাও গ্রামে টয়লেট টাংকিতে নারী লাশ পাওয়া গেছে

ফেঞ্চুগঞ্জের মাইজগাও ইউনিয়নে পুরানগাও গ্রামে টয়লেট টাংকিতে নারী লাশ পাওয়া গেছে

দর্পণ টিভি ফেঞ্চুগঞ্জ প্রতিনিধিঃ উপজেলার ২নং মাইজগাঁও ইউনিয়নে পুরানগাঁও গ্রাম থেকে টয়লেটের রিংয়ের ট্যাংকি থেকে এক নারীর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। গত বুধবার রাতে এ ঘটনা ঘটে। ওই লাশটি উপজেলার মাইজগাঁও পুরানগাও এলাকায় ভাড়াটিয়া বাসায় তাকেন রেদোয়ান মিয়ার স্ত্রী জুলেখা বেগম(৪৫)। এ ঘটনায় তিন জনকে আটক করেছে পুলিশ।

আটককৃতরা হলেন- গরুর খামারের কর্মচারী রুকন হরফে কালু(২০), ইন্দ্র(২১) ও উমন ভক্তা(১৪)।

থানা সূত্রে জানা যায়, পূর্ব পরিকল্পিতভাবে ঘটনার তারিখ ও সময়ে পরস্পর যোগসাজশে জুলেখা বেগম সিএনজি কেনার জন্য টাকা জমিয়েছেন। সেই টাকা ছিনতাই করার জন্য বুধবার সন্ধ্যায় সাড়ে ৭টায় জুলেখা বেগমের ঘরে ঢুকে আসামিরা গামছা প্যাঁচিয়ে শ্বাসরুদ্ধ করে তাকে হত্যা করে। লাশ গোপন করার জন্য আসামিরা পাশ্ববর্তী লন্ডন প্রবাসী মায়া বেগমের টয়লেটের রিংয়ের ভিতরে ফলে দেয়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে জুলেখা বেগমের লাশ টয়লেটের রিংয়ের ট্যাংকির ভিতর থেকে উদ্ধার করেন। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

ফেঞ্চুগঞ্জ থানার ওসি আবুল বাশার মোহাম্মদ বদরুজ্জামান ফেঞ্চুগঞ্জ গনমাধ্যমকে বলেন, এ ব্যাপারে মৃত জুলেখা বেগমের ছেলে রুমন মিয়া বাদী হয়ে থানায় একটি হত্যা মামলা করেছে। পুলিশ অভিযান চালিয়ে আসামিদের আটক করেছেন। সিআইডির ক্রাইম সিনের সহায়তায় ঘটনাস্থল থেকে লাশের প্রাপ্ত রক্তের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। আসামিদের আগামীকাল শুক্রবার আদালতে প্রেরণ করা হবে।

সংবাদ শেয়ার করুন

themesbazartvsite-01713478536