“পুকুরে ভাসমান লাশের পরিচয় উদঘাটন করলেন আগৈলঝাড়ারা থানা পুলিশ”

“পুকুরে ভাসমান লাশের পরিচয় উদঘাটন করলেন আগৈলঝাড়ারা থানা পুলিশ”

বি এম মনির হোসেন,স্টাফ রিপোর্টারঃ- বরিশালের আগৈলঝাড়ায় অজ্ঞাতনামা মধ্য বয়সী নারীর লাশের পরিচয় উদঘাটন করেছে পুলিশ।

উদ্ধার হওয়া ওই নারীর লাশ ওই বাড়ির মৃত নীমাই চন্দ্র হালদার ও কানন বালা হালদারের মেয়ে বাসনা হালদার।

বাসনা ওই গ্রামের পাশেই আহুতি বাটরা গ্রামের নির্মল হালদারের স্ত্রী ও তিন কন্যা সন্তানের জননী। লাশ উদ্ধারের পর থেকেই পুলিশ বিভিন্ন তদন্ত কৌশল অবলম্বন করে শুক্রবার সন্ধ্যায় ওই নারীর পরিচয় উদঘাটন করেছে।থানার অফিসার ইন চার্জ মোঃ আফজাল হোসেন ও ঘটনাস্থল থেকে লাশ উদ্ধারকারী পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মাজহারুল ইসলাম শুক্রবার রাতে সাংবাদিকদের জানান, শুক্রবার খুব সকালে স্থানীয়দের মাধ্যমে খবর পেয়ে রাজিহার ইউনিয়নের পশ্চিম গোয়াইল গ্রামের বীরেণ হালদারের বাড়ির পুকুর থেকে ভাসমান অবস্থায় অজ্ঞাতনামা হিন্দু নারীর (৩৫) এর লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।
ওই দিন সকাল ১১ টায় গৌরনদী সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আব্দুর রব হাওলাদার, আগৈলঝাড়া থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আফজাল হোসেন, আগৈলঝাড়া উপজেলা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক বি এম মনির হোসেন, রাজিহার ইউনিয়ন চেয়ারম্যান মোঃ ইলিয়াস তালুকদার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।
লাশ উদ্ধারের ঘটনায় থানায় প্রাথমিকভাবে অপমৃত্যু মামলা দায়ের করা হয়েছে (নং-১৬ (১৭.৭.২০)। শনিবার সকালে লাশ মর্গে প্রেরণ করেছেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই জামাল হোসেন। প্রত্যক্ষদর্শী সূত্র মতে, শুক্রবার খুব সকালে একই বাড়ির পুকুরে কিছু একটা ভাসতে দেখেন। পরবর্তীতে মৃতের ভাই নিখিল সেটি মানুষের লাশ বলে শনাক্ত করলেও তার বোনের লাশ হিসেবে শনাক্ত করেননি পুকুর থেকে উত্তোলনের পরে বাসনার লাশ কেন তার বাবার পরিবার সদস্যরা ও স্থানীয় লোকজন শনাক্ত করেননি সেই রহস্য খুঁজছে পুলিশ।

সংবাদ শেয়ার করুন

themesbazartvsite-01713478536